শীত - আলোক সরকার

Kobikolpolota.in bangla-kobita-bangla-abritti-bangla-bani


সকলেরই নিশ্চয়ই কোথাও কোনো জন্মভূমি আছে। ভালোবাসা, তুমি।
প্রথম কোথায় দৃষ্টি মেলেছিলে ?
সন্ধ্যা হলো এইবার বাড়ি ফিরে যাবো। বিস্তৃত নিমগ্ন বনভূমি
আর বড়ো বটগাছ। স্পষ্ট মনে আছে।
সেদিন বিকেল বেলা দুই হাতে বকুল ফুলের মালা নিলে।
স্বাগত হাতের উষ্ণ দু-হাতে নিলাম।

সমস্ত পথের ছবি তোমার মুখের । নিবিড়তা আতত প্ৰণাম
একটি সমগ্র ভোর সারা ইতিহাস।
ভালোবাসা, শান্ত বটগাছ দেখো নামিয়েছে নিমগ্ন অসংখ্যা ধূরি
মাটির নিভৃতে। কোনখানে সংযত উচ্ছ্বাস ?
কোনোদিন তোমাকে বলিনি আমি ছোটবেলাকার সেই
ডাইনীবুড়ীর গল্প, মাঠের শেষের ধু-ধু বটগাছ, সরব নিঝুমপুরী।

সুদূর মুদিত জ্যোৎসা কোনোখানে পাতার রঙিন শব্দ নেই
অরব গোপন স্থির বিকশিত ।
একটি পাতার সঙ্গে অপর পাতার আত্মীয়তা, সান্দ্র পরিচয়
মাটির গভীরে হীরা, মাটির গভীরে শিখা প্রবাহিত।
তোমার শাড়ির নীল অন্যমন অসহ মেঘের
মতো নির্মীলতা জল দুঃখ অশ্রুময় ।

নিতৃত ধ্যানের তাপে প্রকাশিত –প্ৰস্ফুটিত বিশুদ্ধ কমল
অরণ্যের প্রতিটি গাছের শিরা মূর্ত আবির্ভাব।
ভালোবাসা, কোথায় একাকী বসো, কোন ছাদে ঘনিষ্ঠ সজল
বৃষ্টি থেমে-যাওয়া আলো । চৈত্রের দুপুর
মাঝে মাঝে সম্পূর্ণ গৌরবে আসে —অনাসক্ত ধুলো, হাওয়া বিস্তীর্ণ অভাব
তখন আসোনি তুমি এক বারো ‘ভালোবাসা, আমাদের মিলন বেলার সন্ধ্যা
কেমন অস্পষ্ট মনে হয়, হেমন্ত কুয়াশা আলো বিবৰ্ণ সুদূর।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ