The letter of Pritilata - সূর্য সেনের উদ্দেশ্যে - প্রীতিলতার চিঠি

For the sake of  Surya Sen - The letter of Pritilata

(এই চিঠি আত্মগােপনকালীন অবস্থায় লেখা)

শ্রীচরণেষু –
দাদা, ভেবেছিলাম আবােল-তাবােল অনেক কিছু লিখে আমার দাদার নিরালা জীবনে একটুখানি আনন্দ দেবার চেষ্টা করব কিন্তু ভগবান হঠাৎ যেন সব উল্টে দিলেন। ছুটাছুটি করে সবাইকে চলে আসতে হ’ল – তারপর যেন নিজের সঙ্গে বােঝাপড়া করাটাই শক্ত হয়ে দাঁড়িয়েছে, কেননা একান্ত মনে যা চেয়েছি তার পথে এত বাধা আমার মনে যে বড়ই ব্যথা দিচ্ছে দাদা। অনেক কিছুই মনে হচ্ছে, যাক্ আপনার আশীৰ্বাদ নিষ্ফল হবে না কখনও আমি জানি। আমার উদ্দেশ্য সফল হবেই, নইলে যে আমি একেবারে মরিয়া হয়ে যাব। যাক্, এসব লিখব তা তাে ভাবিনি।
        আজ আপনার কাছে চিঠি লিখতে বসে ভাবছি আমি কার কাছে চিঠি লিখব? আমি যে তার উপযুক্ত বােন হতে পারলাম না, তার অগাধ স্নেহের মর্যাদা আমি যে রক্ষা করতে পারলাম না। কত অবাধ্যতা করেছি, কত মনে কষ্ট দিয়েছি, বুঝি নি যে ভগবান্ আমাকে অমূল্য সম্পদই দিয়েছেন। যাক্।
        সােনাদা ও মেজদা এসেছিল। খুব ভাল লাগল তাদের সঙ্গে কথা বলতে – তারা আমাকে দেখে খুব খুশী – একেবারে জড়িয়ে ধরে বসেছিল। মা নাকি খুব কাঁদেন – কাঁদতে কাঁদতে হয়রান হয়ে যান্। রােজই কাঁদেন। বাবা কিছু ক্ষান্ত হয়ে গেছেন, তবে বাবার খুব লেগেছে। আমার কাপড়-চোপড়গুলাে গুছিয়ে রেখে দেবার জন্য বলে দিয়েছেন, তা কেউ ব্যবহার করলে বকুনি দেন। মঞ্জুটির খুব অসুখ। গাল ফুলে গেছে। কিছু খেতে পারে না। এবং জ্বরও হয়েছে – রাত দুপুরে উঠে নাকি আমাকে ডাকে। দাদা! আমার মনে আজ বড়ই ব্যথা। আমি কি মানুষকে কষ্ট দিতেই শুধু সংসারে এসেছিলাম। আমি যে তা চাই না। লক্ষ্মীটি দাদা এ হতভাগা বােনটিকে ভুলে যাবার চেষ্টা করুন। জানি স্নেহের বােনটিকে ভুলবেন না কিন্তু আমার সে কথাই বলতে ইচ্ছা করছে – আমার স্মৃতি যে আপনাকে ব্যথা দিচ্ছে।
আমার জন্য চিন্তা করবেন না। শরীর ভাল আছে। আমার প্রণাম জানবেন।
                                                                                              ইতি – স্নেহের ফুলতার*


* ফুলতার প্রীতিলতার ছদ্মনাম। (প্রবাসী, ১৩৫৬, ভাদ্র সংখ্যা থেকে গৃহীত)।  অবিস্মরণীয় সান্নিধ্য - প্রীতিলতা ওয়াদ্দেদার।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ

বৈশিষ্ট্যপূর্ণ পোস্ট গুলি

[getBlock results="5" label="random" type="block1"]
close