কুষ্টিয়া, ৬ অক্টোবর ১৮৯৫ - ছিন্নপত্রাবলী - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর


কুষ্টিয়া।
৬ অক্টোবর ১৮৯৫

           আমার দিনগুলিকে রথীর কাগজের নৌকোর মতাে একটি একটি করে ভাসিয়ে দিচ্ছি। কেবল। মাঝে মাঝে একটি-আধটি গান তৈরি করছি এবং শরৎকালের প্রহরগুলির মধ্যে কুণ্ডলায়িত হয়ে পড়ে আছি। এই অপর্যাপ্ত জ্যোতির্ময় নীলাকাশ আমার হৃদয়ের মধ্যে অবনত হয়ে পড়েছে, আলােক রক্তের মধ্যে প্রবেশ করছে, সর্বব্যাপী স্তব্ধতা আমার বক্ষকে দুই হাতে বেষ্টন করে ধরেছে, একটি সকরুণ শান্তি আমার ললাটের উপর চুম্বন করছে। পূজার ছুটিতে সবাই কাজকর্ম ছেড়ে বাড়িতে এসেছে—আমারও এই বাড়ি—আমার বাড়ির লােকটি আমার সমস্ত খাতাপত্র কেড়েকুড়ে নিয়ে বলছে, তুমি কাজ ঢের করেছ, এখন একটুখানি থামাে। আমিও তাই নিরাপত্তিতে থেমে আছি। এর পরে কর্ম যখন আবার আমাকে একবার হাতে পাবেন তখন টুটি চেপে ধরবেন; তখন আমার এই ঘরের লােকটি, আমার এই ছুটির কী কোথায় থাকবেন তার আর উদ্দেশ পাওয়া যাবে না। প্রায় মাঝে মাঝে মনে করি সাধনা’র লেখার ঝুড়ি পদ্মার জলে ভাসিয়ে দেব; কিন্তু জানি, ভাসিয়ে দিলেও সে আমাকে তার পিছন পিছন টেনে নিয়ে চলবে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ

বৈশিষ্ট্যপূর্ণ পোস্ট গুলি

[getBlock results="5" label="random" type="block1"]
close