Ananta mehedi pata dekhecho lyrics : অনন্ত মেহেদি পাতা দেখেছ নিশ্চয়? – আবুল হোসেন খোকন

+ প্রিয়জনের কাছে শেয়ার করুন +

Ananta mehedi pata dekhecho lyrics : অনন্ত মেহেদি পাতা দেখেছ নিশ্চয়? - আবুল হোসেন খোকন

 

Kobita Lyrics, Ananta mehedi pata dekhecho nischoi written by Abul Hossain Khokon

 

অনন্ত, মেহেদি পাতা দেখেছ নিশ্চয়?

উপরে সবুজ, ভেতরে রক্তাক্ত ক্ষত-বিক্ষত-

নিজেকে আজকাল বড় বেশি মেহেদি পাতার মতো,

মনে হয় কেন?

উপরে আমি অথচ ভিতরে কষ্টের যন্ত্রণার-

এমন সব বড় বড় গর্ত যে-

তার সামনে দাড়াতে নিজেরই ভয় হয়, অনন্ত।

তুমি কেমন আছো?

বিরক্ত হচ্ছ না তো?

ভালোবাসা যে মানুষকে অসহায়ও করে তুলতে পারে-

সেদিন তোমায় দেখার আগ পর্যন্ত-

আমার জানা ছিলো না।

তোমার উদ্দাম ভালোবাসার দ্যূতি-

জ্বালিয়ে-পুড়িয়ে ছারখার করে ফেলেছে আমার ভিতর-

আমার বাহির-

আমার হাতে গড়া আমার পৃথিবী।

অনন্ত, যেই মিথিলা সুখী হবে বলে-

ভালোবাসার পূর্ণ চন্দ্র গিলে খেয়ে-

ভেজা মেঘের মতো উড়তে উড়তে চলে গেল,

আজ‌ও শূন্য, অনন্তকে আরো শূন্য করে দিয়ে-

তার মুখে এসব কথা মানায় না,

আমি জানি-

কিন্তু আমি আর এভাবে এমন করে পারছি না

আমার চারদিকের দেয়াল জুড়ে থই থই করে-

আমার স্বপ্ন খুনের রক্ত।

উদাস দুপুরে বাতাসে শিষ দেয়

তোমার সেই ভালোবাসা

পায়ে পায়ে ঘুরে ফেরে ছায়ার মতন-

তোমার স্মৃতি।

আমি আগলাতেও পারি না,

আমি ফেলতেও পারি না।

সুখী হতে চেয়ে এখন দাড়িয়ে আমি-

একলা আমি-

কষ্টের তুষার পাহাড়ে।

অনন্ত তোমার সামনে দাড়ানোর কোনো –

যোগ্যতাই আজ আমার অবশিষ্ট নেই।

তবুও,

তবুও তুমি একদিন বলেছিলে-

ভেজা মেঘের মতো-

অবুঝ আকাশে উড়তে উড়তে-

জীবনের সুতোয় যদি টান পরে কখনো?

চলে এসো, চলে এসো-

বুক পেতে দেব-আকাশ বানাবো

আর হাসনাহেনা ফুটাবো।

সুতোয় আমার টান পরেছে অনন্ত,

তাই আজ আমার সবকিছু,

আমার এক রোখা জেদ,

তুমি হীনা সুখী অনেক স্বপ্ন!

সব, সবকিছু জলাঞ্জলী দিয়ে-

তোমার সামনে আমি নত জানু-

আমায় তোমাকে আর একবার ভিক্ষে দাও।

কথা দিচ্ছি- তোমার অমর্যাদা হবে না কোনদিন।

অনন্ত, আমি জানি-

এখন তুমি একলা পাষান কষ্ট নিয়ে ঘুরে বেড়াও,

প্রচন্ড এক অভিমানে-

ক্ষনে ক্ষনে গর্জে উঠে অগ্নিগিরি।

কেউ জানে না, আমি জানি-

কেন তোমার মনের মাঝে মন থাকে না,

ঘরের মাঝে ঘর থাকে না,

উঠোন জোড়ার উপর কলস-

তুলসি তলের ঝরা পাতা,

কুয়ো তলার শূন্য বালতি-

বাসন-কোসন, পূর্নিমা-অমাবস্যা,

একলা ঘরে এই অনন্ত-

একা শুয়ে থাকা।

কেউ জানে না, আমি জানি-

কেন তুমি এমন করে কষ্ট পেলে-

সব হরিয়ে বুকের তলের চিতানলে-

কেন তুমি নষ্ট হলে?

কার বিহনে চুপি চুপি, ধীরে ধীরে-

কেউ জানে না, আমি জানি-

আমিই জানি।

আগামি শনিবার ভোরের ট্রেনে তোমার কাছে আসছি।

অনন্ত, আমার আর কিছু না দাও- অন্তত শাস্তিটুকু দিও।

ভালো থেকো!

তোমারি হারিয়ে যাওয়া মিথিলা।

 

পছন্দসই পোস্ট গুলি দেখুন
 
+ প্রিয়জনের কাছে শেয়ার করুন +

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কবিকল্পলতা অনলাইন প্রকাশনীতে কবিতা ও আবৃত্তি প্রকাশের জন্য আজ‌ই যুক্ত হন। (কবিকল্পলতায় প্রকাশিত আবৃত্তি ইউটিউব ভিউজ ও সাবস্ক্রাইবার বাড়াতে সহায়তা করে)